by

মোহাম্মদ বিন সালমান

বাদশা সালমানের পুত্র মোহাম্মদ বিন সালমান সৌদির সবচাইতে ক্ষমতাশালী ব্যক্তি। সম্প্রতি তিনি দুর্নীতি দমন অভিযান শুরু করেছেন তার দেশে, সামনে এনেছেন তার ভিশন ২০৩০ পরিকল্পনা। অত্যাধুনিক শহর নিওমের পরিকল্পনাও এতে রয়েছে। কিন্তু এতসব কেন? সৌদির জন্য কি বড় কোন বিপদ অপেক্ষা করছে?

by

আমেরিকান হিস্টোরী এক্স ও এডওয়ার্ড নর্টন

থ্রিলারের একটি টেকনিক হলো হঠাৎ মাঝখান থেকে শুরু করা। যেমন লেখা হলো বা দেখানো হলো তিনজন লোক মরে পড়ে আছে আর একপাশে পিস্তল হায়ে খুঁড়িয়ে যাচ্ছে নায়ক। সে গিয়ে বসল এক জায়গায়। তখন তার স্মৃতিতে দেখানো শুরু হলো কীভাবে এসব ঘটনা ঘটল, সে কে, যারা মরে পড়ে ছিল তারা কে, ইত্যাদি। আমেরিকান হিস্টোরী এক্স এই ফর্ম অনুসরন করেছে।

by

মূলনীতি ভিত্তিক চিন্তা

“আমি কোন জিনিস পদার্থবিদ্যার ফ্রেইমওয়ার্কে ভাবতে পছন্দ করি। পদার্থ বিজ্ঞান তুলনা দিয়ে বুঝার চাইতে মূলনীতি দিয়ে বুঝতে চায়। তাই আমি বললাম, ঠিক আছে, দেখা যাক রকেট বানাতে কী কী লাগে। এরোস্পেস গ্রেডের এলুমিনিয়াম শংকর, কিছু টাইটেনিয়াম, কপার, কার্বন ফাইবার। তারপর নিজেকে প্রশ্ন করলাম, এই জিনিসগুলির দাম কতো সাধারণ পণ্য বাজারে? দেখা গেল একটা সাধারণ রকেটের মূল বস্তুগুলির দাম মূল রকেটের দামের মাত্র দুই শতাংশ।”

by

সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা হাঙ্গামায় ফেইসবুকের অবদান

মিয়ানমারে রোহিংগাদের উপর যে নির্যাতন করা হলো, সেখানেও বড় ভূমিকা ছিল ফেইসবুকের। অশিন উইরাথু নামের যে উগ্র জাতীয়তাবাদী বৌদ্ধ ভিক্ষু আছে, তার পাবলিক বক্তৃতা নিষিদ্ধ করে মায়ানমার সরকার। কিন্তু ভিক্ষু তার উগ্রতা ছড়ানোর জন্য ফেইসবুক বেছে নেন। তার অনুসরনকারীরা তার ফেইসবুক একাউন্টে ভীড় জমান। ফেইসবুকের জনপ্রিয়তা মিয়ানমারে বাংলাদেশের মতই, ইন্টারনেট বলতে লোকে ফেইসবুকই বুঝে।

by

সময় বিষয়ে সেনেকা

মানুষ কি আসলে বুঝতে পারে প্রতিদিন এর মূল্য? সে কি বুঝতে পারে যে আসলে প্রতিদিনই সে মারা যাচ্ছে? মৃত্যু হঠাৎ করে ঘটে যাওয়া কোন একদিনের তাৎক্ষণিক ঘটনা না। প্রতিদিনই তা ঘটে যাচ্ছে। যখন আমরা মৃত্যুকে দেখতে সামনে তাকাই, তখন আমরা আসলে ভুল করি। মৃত্যু তো পেছনে, যেসব দিন আমাদের চলে গেছে, যেসব সময়, বছরকাল, সেসব তো এখন মৃত্যুর কব্জায়। মৃত্যু তা গ্রাস করে নিয়েছে। এক দেশের লোক যদি গড়ে ৫০ বছর বাঁচে, তাহলে সে দেশের কোন একজনের বয়স ২৫ হওয়া মানে প্রায় অর্ধেক জীবনই তার মৃত্যু খেয়ে নিয়েছে। এবং প্রতিদিন, প্রতি মুহুর্তে খেতে খেতে সামনে এগুচ্ছে।