by

২০১৬ সালে যারা এসেছেন

এই ব্লগ তৈরী করার পর প্রায় বছর খানেক তেমন কোন লেখা প্রকাশ করি নি এখানে। আমার প্রাথমিক ইচ্ছা ছিল গল্পগুলি এখানে পোস্ট দেয়া বা বিভিন্ন জায়গায় প্রকাশিত গল্পগুলির লিংক এখানে রাখা। পরবর্তীতে ভাবলাম যেহেতু ব্লগ সেট আপ দিয়ে রেখে দিয়েছি এবং এর জন্য বছর বছর কিছু টাকা গুণতে হচ্ছে তাহলে এখানে কিছু লেখা প্রকাশ করা যায়।

প্রাথমিকভাবে চলচ্চিত্র নিয়ে বেশ কিছু লেখা প্রকাশ করি। ফিল্ম এই ব্লগের একটি প্রধান বিষয়। চলচ্চিত্র নিয়ে প্রায় ৩৯ টি লেখা এখানে আছে।

পরবর্তীতে যেসব বিষয়ে আমার আগ্রহ, এবং আমি শিখতে চাই ও শিখি; তা নিয়ে লেখা এখানে প্রকাশ করতে শুরু করি। এর সাথে সাথে প্রথম উদেশ্য তথা বিভিন্ন সাহিত্য পত্রিকায় প্রকাশিত গল্পগুলির লিংক যুক্ত করে রাখি আলাদা বিভাগে।

২০১৬ সালে কমবেশী একটিভ ছিলাম লেখা প্রকাশের ক্ষেত্রে। এই বছর এই ব্লগে অনেক পাঠক এসেছেন।  যার একটি আনুমানিক চিত্র  এরকম -

বিশ হাজার সেশনে প্রায় তেরো হাজার ইউজার প্রায় লাখ খানেক বার ভ্রমণ করেছেন। গড়ে তারা দুই মিনিটের মত ব্লগে ছিলেন।

এই চিত্র সামগ্রিক। পুরো ধারনার জন্য আরেকটু গভীরে যেতে হবে।

দেখা যাক, সাইটে পাঠকেরা কত সময় নিয়ে লেখাগুলো পড়েছেন। এটা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন।

 

ত্রিশ মিনিটের বেশী সময় নিয়ে পড়েছেন প্রায় ৩৭৭ জন পাঠক। তাদের পেইজ ভিউ প্রায় ১২ হাজার।

১০ থেকে ৩০ মিনিটের মত সময় নিয়ে পড়েছেন প্রায় ১২০০ জন। তাদের ভিউ ১৬ হাজার

আশা করি, তাদের পাঠ অভিজ্ঞতা দারুণ ছিল।

 

৩০ মিনিট কত দীর্ঘ সময়?

আমেরিকায় প্রতি ৮ সেকেন্ডে একজন মানুষ জন্ম নেয়। ত্রিশ মিনিটে সেটা হয় ২২৫ জন মানুষের জন্ম।

মারা যায় প্রতি ১১ সেকেন্ডে একজন মানুষ। ত্রিশ মিনিটে হয় প্রায় ১৬৩ জন মানুষের মৃত্যু।

পাঠকদের মধ্যে কারা বেশী, নারী না পুরুষ?

নারী ও পুরুষ উভয় লিঙ্গের পাঠকেরাই এই ব্লগ ভিজিট করেছেন ২০১৬ সালে। তবে পুরুষ পাঠকদের সংখ্যা বেশী ছিল। এটা হতে পারে এজন্য যে পুরুষেরা বেশী সময় ইন্টারনেটে ব্যয় করেন এবং এই ব্লগের বিষয়াবলী নারীদের কাছে অত আকর্ষনীয় নয়। ব্লগে পুরুষ পাঠকদের হার প্রায় ৮৫ ভাগ।

কোন বয়সের পাঠকেরা বেশী?

এই প্রশ্নের উত্তর আন্দাজ করা সহজ। ইন্টারনেটে ২৪ থেকে ৩৫/৪০ এরকম বয়সের ব্যবহারকারীর সংখ্যাই বেশী। এই ব্লগের পাঠকদের ক্ষেত্রেও বেশী ছিলেন ২৪ থেকে ৩৪ বছর বয়সের পাঠকেরা। ১৮ থেকে ২৪ এবং ২৪ থেকে ৩৪ - এই বয়সের পাঠকেরাই ছিলেন সিংহ ভাগ।

কোন ধরনের ডিভাইস থেকে বেশী পাঠ হয়েছে?

বেশী পাঠ হয়েছে মোবাইল ডিভাইস হতে। আমার ধারণা ছিল, মোবাইল ডিভাইস হতে পাঠের সংখ্যা কম্পিউটার থেকে পাঠসংখ্যা অপেক্ষা খুব বেশী হবে। কিন্তু ডেটায় খুব বড় পার্থক্য দেখা যায় নি। মোবাইল থেকে পড়েছেন ৫৩ ভাগ পাঠক। কম্পিউটার থেকে ৪৩ ভাগ।

কী ধরনের মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার হয়েছে বেশী এই ব্লগ পাঠ করার ক্ষেত্রে, তা দেখতে গিয়ে দেখা গেল স্যামসাং এর মোবাইলগুলাই বেশী।

কোন ধরনের ব্রাউজার বেশী ব্যবহার হয়েছে ব্লগ পাঠের জন্য, তার তথ্য নিচের ছবিতে দেখা যায়

এখানে সমগ্র (মোবাইল+ কম্পিউটার) ভিজিট হিসাবে নেয়া হয়েছে। ক্রোম জয়যুক্ত হয়েছেন। এরপরেই আছে অপেরা মিনি।

এই ব্লগের সব পাঠকদের ধন্যবাদ। আশা করি, এর লেখাগুলো পাঠকদের বুদ্ধিবৃত্তি ও চিন্তার উন্নয়নের ভূমিকা রাখতে পেরেছে। যেসব পাঠক লেখাগুলি শেয়ার করেছেন, অন্যদের পড়তে সাহায্য করেছেন তাদের প্রতি রইল কৃতজ্ঞতা।

Share

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.