চার্লি মাঙ্গারের প্রজ্ঞাংশ

মাঙ্গারিজম সিরিজের এই পোস্টে চার্লি মাঙ্গারের কিছু টুকরো প্রজ্ঞাংশ যুক্ত আছে। এগুলি তার বক্তব্য এবং লেখা থেকে নেয়া হয়েছে এবং ইংরাজি থেকে বাংলায় ভাষান্তরিত করা হয়েছে। আশা করি আপনার উপকারে আসবে।

 

 

 

কেরিয়ারঃ

কেরিয়ারের জন্য তিন নিয়মঃ ১) এমন কিছু বিক্রি করবেন না যা আপনি নিজে কখনো কিনবেন না। ২) এমন কারো সাথে কাজ করবেন না যার প্রতি আপনি মুগ্ধ নন ও যাকে সম্মান করেন না। ৩) যাদের সাথে কাজ উপভোগ করতে পারেন কেবল তাদের সাথেই কাজ করুন।

 

নো ফ্রী লাঞ্চঃ

যখন কেউ আপনাকে কোন ঝুঁকি ছাড়া অনেক টাকা দেবার কথা বলে, তার বাকী কথা আর শুনবেন না। এটা অনুসরণ করুন, নিজেকে অনেক দুর্দশা থেকে বাঁচাবেন।

 

ব্রিলিয়ান্ট হতে হবে নাঃ

আপনাকে ব্রিলিয়ান্ট হতে হবে না, খালি অন্যদের চাইতে একটু প্রজ্ঞাবান হবেন, গড়ে, দীর্ঘ থেকে দীর্ঘ সময় ধরে।

 

মোজার্টঃ

আমার সব সময় সেই যুবক ছেলেটির কথা মনে থাকে যে মোজার্টের কাছে গিয়ে বলেছিল, “আমি সিম্ফনী লেখতে চাই।” মোজার্ট বললেন, “তুমি খুবই ছোট।” যুবকটি বলল, “আপনি যখন শুরু করেছিলেন তখন আপনিও ছোট ছিলেন।” মোজার্ট বললেন, “তা ঠিক। কিন্তু আমি কীভাবে তা করতে হবে তা জানতে কারো কাছে উপদেশ চাই নি।”

 

ইতিহাসঃ

ভবিষ্যত বুঝার জন্য ইতিহাসের চাইতে বড় শিক্ষক আর নেই। বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার দামের উত্তরও থাকে মাত্র ত্রিশ ডলার দামের ইতিহাস বইয়ে।

 

সাহায্যঃ

একজন মানুষ আরেকজন মানুষকে সর্বোচ্চ যে সাহায্য করতে পারে তা হলো তাকে আরো জানতে সাহায্য করা।

 

জীবন যাপনঃ

প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠার সময় যেরকম প্রজ্ঞাবান ছিলেন তার চাইতে সামান্য একটু বেশী প্রজ্ঞাবান হয়ে ঘুমাতে যান রাতে। এভাবে যদি নিয়মিত করতে থাকেন, এবং অন্য সব সাধারণ লোকের মত যদি যথেষ্ট জীবন পান, তাহলে জীবন থেকে আপনি আপনার প্রাপ্য পেয়ে যাবেন।

 

প্রজ্ঞার্জনঃ

দুনিয়াবি প্রজ্ঞা অর্জন করুন আর সেই অনুসারে নিজের আচার আচরণ মিলিয়ে ফেলুন। এতে যদি আপনার পরিচিত মহলে সাময়িক সামান্য অজনপ্রিয় হয়ে উঠেন- তাহলে থোড়াই কেয়ার ওগুলিকে!

 

জীবন যাপনঃ

নিজের সেরাটা দিন। কখনো মিথ্যা বলবেন না। যদি বলেন আপনি কোন কিছু করতে যাচ্ছেন, করে ফেলুন। ওজর বা কৈফিয়ত নিয়ে কারো মাথাব্যথা নেই। মিটিং হলে তাড়াতাড়ি বেরিয়ে পড়ুন। দেরী করবেন না, আর দেরী করে ফেললে মানুষকে কৈফিয়ত দিতে যাবেন না। সোজা দুঃখ প্রকাশ করুন। দুঃখ প্রকাশ পাওয়াটা তাদের প্রাপ্য, এবং তারা কৈফিয়তে আগ্রহী নয়।”

 

স্ট্যান্টবাজদের থেকে দূরে থাকুনঃ

আমি সব সময় সেসব লোকদের থেকে দূরে রাখি যারা এমন সব বিষয় নিয়ে নিশ্চিতভাবে উত্তর দেয়, যেসব নিয়ে তাদের কোন জ্ঞানই নেই।

 

বাস্তবতাঃ

বুদ্ধিমান লোকেরাও গর্দভের মত কাজ করে বসেন।

 

দূর্ভাগ্যঃ

অল্প বয়েসে আপনি যদি ভারী ভারী অনেক মতাদর্শ পেয়ে যান, এবং এরপর এগুলি প্রকাশ করতে থাকেন তাহলে আসলেই আপনি আপনার মস্তিষ্কে দূর্ভাগ্যজনক এক শৃঙ্খলে বন্দি করে ফেলছেন।

 

মহৎ মৃতদের সাথে বন্ধুত্বঃ

আমি হচ্ছি বায়োগ্রাফি নাট। আমি মনে করি সেরা কনসেপ্টগুলি শিখতে হলে যারা এগুলি ভেবেছেন তাদের জীবনের সাথে একটা ব্যক্তিগত সম্পর্ক তৈরী করা যায় তাদের জীবনী পড়ে। আপনি অর্থনীতি ভালো বুঝবেন যদি এডাম স্মিথকে আপনার বন্ধু বানাতে পারেন। এটা হয়ত হাস্যকর শুনাবে, মহৎ মৃতদেরকে নিজের বন্ধু বানানো, কিন্তু আপনি যদি আপনার পুরো জীবনে যারা ঠিক চিন্তাগুলি করেছিলেন সেইসব মহৎ মৃতদের বন্ধু বানাতে থাকেন, তাহলে তা আপনার জীবন ও কাজের উপকার করবে। এটা কেবলমাত্র বেসিক কনসেপ্ট শেখার চাইতে বেশী কিছু।

 

হিংসাঃ

হিংসা হচ্ছে একটি গর্দভী পাপ কারণ এটাই একমাত্র পাপ যাতে কেউ সম্ভবত  কখনোই কোন মজা পাবেন না।

Share
আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে লেখাটি পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ। লেখার স্বত্ত্ব লেখক কতৃক সংরক্ষিত, কপি করবেন না। লিংক শেয়ার করুন, তাতে অন্যরা পড়ার সুযোগ পাবেন।

Related Posts

Leave A Comment